Text size A A A
Color C C C C
পাতা

কী সেবা কীভাবে পাবেন

১) সমিতি/দলগঠন, অর্থ সহায়তা প্রদান ও এ সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য এবং ফরম সরবরাহ।

২) সদস্যদের শেয়ার ও সঞ্চয় আমানত ও সংগ্রহের মাধ্যমে নিজস্ব পূঁজি গঠনে সহায়তা দান।

৩) সমিতির সদস্যদেরকে সহজ শর্তে কৃষি উৎপাদন ও কৃষি উপকরণের জন্যে কৃষক সমবায় সমিতিতে(সার, বীজ, কীটনাশকএবং সেচযন্ত্র) অর্থ(ঋণ) প্রদান।

৪) বিভিন্ন প্রকল্প/কর্মসূচীর আওতায় অনানুষ্ঠানিক দলগঠন এবং উৎপাদনমূখী ও আয়বৃদ্ধিমূলক কর্মকান্ডের জন্যে ঋণ প্রদান।

৫) আনুষ্ঠানিক সমিতি নিবন্ধনের পরপররই এবং অনানুষ্ঠানিক দল গঠনের ৮(আট) সপ্তাহের পর সদস্যদেরকে ঋণ প্রদান।

৬) সমবায়ীদের উৎপাদিত শস্যের বাজারজাতকরণের সুযোগ সৃষ্টি এবং ন্যায্য মূল্য প্রাপ্তিতে সহায়তা।

৭) নারীর ক্ষমতায়ন ও নারী নেতৃত্ব বিকাশে সচেতনতা বৃদ্ধি, নারী নির্যাতন রোধ ও যৌতুক প্রথা নির্মূলে সচেতনতা সৃষ্টিতে সহায়তা।

৮) শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও পরিবার পরিকল্পনা প্রভূতি বিষয়ে পরামর্শ সেবা দান।

৯) বৃক্ষরোপন ও স্যানিটেশন সম্পর্কে সচেতনতা বৃদ্ধিকল্পে পরামর্শ ও সহযোগীতা প্রদান।

১০) অস্বচ্ছল মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের পোষ্যদের আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে নামমাত্র সেবামূল্যের বিনিময়ে ঋণ প্রদান।

১১) গ্রামীন দরিদ্র মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়নে সহযোগীতা প্রদান এবং গ্রামীন নেতৃত্বের বিকাশ ও দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে দরিদ্র জনগোষ্টিকে সর্ম্পৃক্ত করণ।

১২) অংশীদারিত্বমূলক পল্লী উন্নয়ন প্রকল্প-২(পিআরডিপি-২)এর মাধ্যমে গ্রামের ভিতরের রাস্তা, গ্রামীন হাট বাজারের টিনসেড নির্মান, রিং কালভার্ট, স্কুল ঘর মেরামত, বাঁশের শাকোঁ তৈরি, স্বাস্থসম্মত রিং ও স্লাব ইত্যাদি গ্রামবাসীদের প্রয়োজনীয়তা অনুযায়ী নির্মান করা হয় ।

১৩) একটি বাড়ী একটি খামার প্রকল্পের মাধ্যমে প্রতিটি পরিবারকে মানব ও অর্থনেতিক সম্পদের সর্বোত্তম ব্যবহারের মাধ্যমে টেকসই আর্থিক কার্যক্রমের একক হিসেবে গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে জাতিকে শূণ্যের কোঠায় নামিয়ে আনা।

১৪) উপজেলা অফিসের কোন কর্মকর্তা/কর্মচারীর বিরুদ্ধে অভিযোগ থাকলে উপজেলা পল্লী উন্নয়ন অফিসারের নিকট উত্থাপিত করা হলে তার প্রতিকার করা হবে।

১৫) উপজেলায় বসবাসরত যে কোন ব্যক্তিকে সেবা সংক্রান্ত তথ্য প্রদান এ অফিস প্রতিশ্রতিবদ্ধ।